বিস্তারিত : ব্যান্ড উইডথ কী? ইহা কত প্রকার ও কি কি

ব্যান্ড উইডথ কী এবং ইহা কত প্রকার ও কি কি, ব্যান্ড উইডথ কাকে বলে ইত্যাদি বিষয়ের উপর বিস্তারিত আলোচনা।
ব্যান্ড উইডথ কী এবং ইহা কত প্রকার ও কি কি, ব্যান্ড উইডথ কাকে বলে, ডেটা ট্রান্সমিশন স্পিড, ন্যারো ব্যান্ড, ভয়েস ব্যান্ড, ব্রডব্যান্ড ইত্যাদি বিষয়ের উপর বিস্তারিত আলোচনা।
ব্যান্ড উইডথ কী? ইহা কত প্রকার ও কি কি

বন্ধুরা সবাই কেমন আছেন? আশা করি খুব ভালো আছেন। আমিও আপনাদের দোয়া ও আশীর্বাদে ভালো আছি। আজকের নতুন টপিকে আপনাকে স্বাগতম! আজকে আপনাদের সাথে আলোচনা করবো ব্যান্ড উইডথ কী? ইহা কত প্রকার ও কি কি?

ব্যান্ড উইডথ কী?

প্রতি সেকেন্ডে যে পরিমাণ বিট ট্রান্সমিট করা হয় তাকে bps বা Bandwidth বলে। অন্যভাবে বলা যায়, একক সময়ে কোনো মাধ্যমের মধ্য দিয়ে পরিবাহিত ডেটার পরিমানই হচ্ছে ব্যান্ড উইডথ।

সাধারণত ব্যান্ড উইডথ হিসাব করা হয় Bit Per Second (bps) এর মাধ্যমে।

এক কম্পিউটার থেকে অন্য কম্পিউটার বা একস্থান থেকে অন্য স্থানে ডেটা স্থানান্তর হওয়ার হারকে ডেটা ট্রান্সমিশন স্পিড বা গতি বলে। ডেটা ট্রান্সমিশন স্পিডকে ব্যান্ড উইডথও বলা হয়।

যদি কমিউনিকেশন মাধ্যম হিসেবে কোনো ক্যাবলের মধ্যে দিয়ে সেকেন্ডে ১০ মেগা বিট ডেটা পরিবাহিত হতে পারে তাহলে তার ব্যান্ড উইডথ হলো ১০ মেগাবিট বা ১০ এমবিপিএস (10Mbps)। মিডিয়ার ব্যান্ড উইডথ যত বেশি হবে, ডেটা তত দ্রুত এক স্থান থেকে অন্য স্থানে যেতে পারবে।

ব্যান্ড উইডথ কত প্রকার ও কি কি?

ডেটা ট্রান্সমিশন স্পিড এর উপর ভিত্তি করে ডেটা ট্রান্সমিশন তিন ভাগে ভাগ করা হয়েছে।
  1. ন্যারো ব্যান্ড (Narrow Band)
  2. ভয়েস ব্যান্ড (Voice Band)
  3. ব্রডব্যান্ড (Broad Band)
০ এবং ১ হচ্ছে বিট, ৮ বিট = ১ বাইট
১০২৪ বাইট = ১ মেগাবাইট (MB)
১০২৪ মেগাবাইট = ১ গিগাবাইট (GB)

ন্যারো ব্যান্ড (Narrow Band) : ন্যারো ব্যান্ডের ডাটা চলাচলের গতি ৪৫ থেকে ৩০০ Bit per Second (bps) পর্যন্ত হয়ে থাকে। ধীর গতি ডাটা স্থানান্তরের ক্ষেত্রে এধরনের ব্যান্ড ব্যবহৃত হয়। টেলিগ্রাফিতে ন্যারো ব্যান্ড ব্যবহৃত হয়ে থাকে।

ভয়েস ব্যান্ড (Voice Band) : ভয়েস ব্যান্ডের ডেটা চলাচলের গতি সর্বোচ্চ ৯৬০০ bps পর্যন্ত হয়ে থাকে। এটি সাধারণত টেলিফোন লাইনে বেশি ব্যবহৃত হয়। তবে কম্পিউটারে ডাটা কমিউনিকেশনে কম্পিউটার থেকে প্রিন্টারে, কার্ড রিডার থেকে কম্পিউটারে ডেটা স্থানান্তরের ক্ষেত্রে ভয়েস ব্যান্ড ব্যবহৃত হয়।

ব্রডব্যান্ড (Broad Band) : ব্রডব্যান্ড এর ডেটা চলাচলের গতি কমপক্ষে ১ মেগা bps হতে অত্যন্ত উচ্চগতি সম্পন্ন হয়ে থাকে (১ Gpbs পর্যন্ত হয়ে থাকে)। সাধারণত ফাইবার অপটিক ক্যাবল, DSL (Digital Satellite Link), WiMax, স্যাটেলাইট এবং মাইক্রোওয়েভ কমিউনিকেশনের ক্ষেত্রে এই ব্রডব্যান্ড ব্যবহৃত হয়। বর্তমানে কম্পিউটার নেটওয়ার্কিং প্রক্রিয়ায় ডেটা স্থানান্তরের ক্ষেত্রে এই ব্যান্ড ব্যবহৃত হয়ে থাকে।


ব্যান্ড উইডথ কী এবং ইহা কত প্রকার ও কি কি বন্ধুরা এই টপিকটি পুরোটা পড়ার জন্য অনেক ধন্যবাদ, যদি এই টপিকের কোনকিছু বুঝতে না পাড়েন তাহলে নিচে কমেন্ট করুন। আশা করি উত্তর দেওয়ার চেষ্টা করবো। আর আপনাদের যদি নতুন কিছু জানার থাকে তাহলে আমাদের জানান আমরা জানানোর চেষ্টা করবো। ধন্যবাদ Amarload.com এর সাথে থাকার জন্য।