লাইফস্টাইল : কিভাবে লাইফস্টাইল পরিবর্তন করা যায়

লাইফস্টাইল এবং কিভাবে লাইফস্টাইল পরিবর্তন করা যায় - পৃথিবীতে কে না চাই সুস্থ ও সুন্দর জীবনযাপন কাটাতে
কিভাবে লাইফস্টাইল পরিবর্তন করা যায় ও নিজেকে পরিবর্তন করার উপায়, জীবন কিভাবে সুন্দর করা যায়, লাইফস্টাইল কেমন হওয়া উচিত এইগুলো নিয়ে আজকের আলোচনা।
কিভাবে লাইফস্টাইল পরিবর্তন করা যায়

বন্ধুরা সবাই কেমন আছেন? আশা করি খুব ভালো আছেন। আমিও আপনাদের দোয়া ও আশীর্বাদে ভালো আছি। আজকের নতুন টপিকে আপনাকে স্বাগতম! আজকে আপনাদের সাথে আলোচনা করবো কিভাবে লাইফস্টাইল পরিবর্তন করা যায় তো চলুন বন্ধুরা শুরু করা যাক আজকের টপিক।

পৃথিবীতে কে না চাই সুস্থ ও সুন্দর জীবনযাপন কাটাতে, কিন্তু ব্যস্ততার জন্য অনেক সময় মানুষ তাদের স্বাস্থ্যের প্রতি খেয়াল রাখা সম্ভব হয়ে ওঠে না।

এ কারণেই মানুষ বিভিন্ন রোগের শিকার হচ্ছে, যার পিছনে সবচেয়ে বড় ভুমিকা রয়েছে বদ অভ্যাস।এজন্য আপনাকে আপনার লাইফস্টাইল পরিবর্তন করতে হবে। লাইফস্টাইল পরিবর্তন করার জন্য শারীরিক ও মানসিকভাবে কিছু অভ্যাস পরিবর্তন আনতে হবে।

বর্তমানে যে কোন বাড়িতেই কোন না কোন রোগে আক্রান্ত হচ্ছে। আর এই রোগের মধ্যে রয়েছে হৃদরোগ, রক্তচাপ ও ডায়াবেটিস। তাই এই অবস্থার অগ্রগতি রোধ করার জন্য আপনাকে আপনার লাইফস্টাইল বা জীবনযাত্রায় কিছু পরিবর্তন করতে হবে।

কিভাবে লাইফস্টাইল পরিবর্তন করা যায়

আমাদের দৈনন্দিন জীবনে লাইফস্টাইলের কিছু পরিবর্তন আনতে হলে অবশ্যই কিছু গুরুত্বপূর্ণ পরিবর্তন রয়েছে। সেগুলো নিচে দেওয়া হলো:-

১. সকাল সকাল ঘুম থেকে উঠার চেষ্টা করুন

দেরিতে ঘুম থেকে উঠার অভ্যাস বদলাতে হবে। কারণ দেরিতে ঘুম থেকে উঠলে আপনার শরীর অলস ও ক্লান্তি ভাব থাকবে এবং আপনি সারাদিন কাজ করতে পারবেন না।

তাই আপনার যদি সকাল সকাল খুব থেকে উঠার অভ্যাসটি করে ফেলতে পারেন তবে আপনি আপনার জীবনে অনেক পরিবর্তন আনতে পারবেন। এছাড়াও তারাতারি ঘুম থেকে উঠার ফলে সারাদিন মন ঝরঝরে ও শরীর সুস্থ থাকতে সাহায্য করে।

এভাবে আপনি কিছুদিন সকাল সকাল ঘুম থেকে উঠার চেষ্টা করুন দেখবেন আপনার জীবনে অনেক পরিবর্তন আসতে শুরু হয়ে গেছে।

২. অবশ্যই প্রতিদিন ব্যায়াম করুন

প্রতিটি মানুষের উচিত সকালে ঘুম থেকে উঠে ব্যায়াম করা। আর এই ব্যায়াম করার ফলে আপনার শরীর ও মন সুস্থ রাখতে সাহায্য করে।

নিয়মিত ব্যায়াম প্রতিটি মানুষের রোগ প্রতিরোধের ক্ষমতা বৃদ্ধি করে এবং বিভিন্ন শারীরিক সমস্যা থেকে পুনরুদ্ধার পাওয়া যায়।

নিয়মিত ব্যায়াম করার ফলে হৃদরোগ, ডায়াবেটিস, মানসিক অবসাদগ্রস্ততা দূর হয় ইত্যাদি  রোগে শারীরিক ব্যায়াম কার্যকর ভূমিকা রাখে। তাই সকালে ঘুম থেকে উঠে ব্যায়াম করুন ও যোগা করুন।

৩. প্রতিদিনের কাজের রুটিন তৈরি করুন

আপনি যদি আপনার নিজের লাইফস্টাইল পরিবর্তন করতে চান তাহলে প্রতিদিনের কাজের রুটিন তৈরি করুন।

প্রতিটি ব্যক্তি উচিত তার কাজের জন্য রুটিন তৈরি করা। আর ওই রুটিন অনুযায়ী প্রতিদিনের কাজ প্রতিদিন শেষ করুন। ফলে আপনি দেখতে পাবেন রুটিন মাফিক কাজ করার ফলে আপনার কাজের অগ্রগতি কতটা বৃদ্ধি পেয়েছে নিজেই তা বুঝতে পারবেন।

তাই প্রতিদিনের কাজের রুটিন আগের দিন তৈরি করে ফেলুন। তাহলে আপনার কোন কাজটি কোন সময় করতে হবে তা নিয়ে চিন্তা করতে হবে না।

৪. স্মার্টফোন কম ব্যবহার করুন

বর্তমান যুগে স্মার্টফোনের ব্যবহার দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। এমনও অনেক মানুষ আছে, যারা সব সময় স্মার্টফোনের পিছনে মূল্যবান সময় ব্যয় করছে এবং তারা সুযোগ পেলেই ফেসবুক, ইউটিউব এবং ইন্সটাগ্রাম ব্যবহার করে, প্রায় দিনের অর্ধেটা সময় কাটিয়ে দিচ্ছে।

এক্ষেত্রে আপনি যদি চান কিভাবে লাইফস্টাইল পরিবর্তন করা যায়। তবে আমি আপনাকে বলবো স্মার্ট ফোনের ব্যবহার কম করতে। অতিরিক্ত স্মার্ট ফোনের ব্যবহার, অনেক সমস্যার কারণ হতে পারে।

তাই, ফোন যতটুকু দরকার ঠিক ততটুকু ব্যবহার করুন। অতিরিক্ত স্মার্টফোন ব্যবহারের ফলে আপনার শরীর ও চোখের উপর খুব খারাপ প্রভাব পড়ে। 

৫. সময় অপচয় করা বন্ধ করুন

আপনি যদি সোশ্যাল মিডিয়ায় আসক্ত হন। তবে এটা থেকে আপনাকে বেড়িয়ে আসতে হবে। আর যদি আসক্ত না হন তাহলে সোশ্যাল মিডিয়াতে সময় ব্যয় করা বন্ধ করতে হবে।

বর্তমান সময়ে দেখা যায় বেশির ভাগ মানুষ ফেসবুক, টুইটার এবং বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্মে তার মূল্যবান সময় ব্যয় করছে। এর থেকে আপনাকে বেড়িয়ে আসতে হবে এবং প্রয়োজন ছাড়া মোবাইল ফোন ব্যবহার করবেন না।

৬. ধুমপান থেকে দূরে থাকুন

ধুমপান একটি মরণ ব্যধি। কথায় আছে, "ধুমপান মানে বিষপান"। আমাদের দেশে প্রতি বছর ধুমপানের কারণে অনেক মানুষ মারা যায়। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার হিসাব অনুযায়ী, ধুমপানের কারণে বিশ্বে প্রতি ৬ সেকেন্ডে ১ জন করে মানুষ মারা যায়।

শুধু তাই নয়, ধুমপানের ফলে বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হচ্ছে যেমন ফুসফুস, হার্ট, রক্তনালী, মুখ, ব্লাডার ইত্যাদি রোগে উপর নেতিবাচক প্রভাব ফেলছে। 

তাই আমাদের যথা সম্ভব ধুমপানকে এড়িয়ে চলতে হবে। আপনি যদি সুস্থ ও আনন্দময় জীবন কাটাতে চান তাহলে ধুমপানকে পরিহার করুন।

৭. সময়ের মূল্য দিন

সময় কারো জন্য থেমে থাকে না। আশেপাশে অনেকেই আছি, হাতে সময় থাকতেও সেই সময় আমরা কাজে লাগায় না।

তাই নিজের ভালোর কথা মাথায় রেখে আপনার মূল্যবান সময় ব্যবহার করুন। এক্ষেত্রে আপনি যদি যানতে চান কিভাবে লাইফস্টাইল পরিবর্তন করা যায় তাহলে আমি বলবো সময়ের সঠিক ব্যবহার। কারণ মানুষ তখনই সফল হতে পারে যে ব্যক্তি সময়কে গুরুত্ব দেয়।

আপনি চারপাশে খেয়াল করলে দেখতে পারবেন যারা বড় বড় কোম্পানীর মালিক তারা সময়কে কতটা মূল্য দেয়।

তাই আপনি যদি সময়কে সঠিকভাবে কাজে লাগাতে পারেন তাহলে আপনি নিজের লাইফস্টাইলকে পরিবর্তন করতে পারবেন।


কিভাবে লাইফস্টাইল পরিবর্তন করা যায় - বন্ধুরা এই টপিকটি পুরোটা পড়ার জন্য অনেক ধন্যবাদ, যদি এই টপিকের কোনকিছু বুঝতে না পাড়েন তাহলে নিচে কমেন্ট করুন। আশা করি উত্তর দেওয়ার চেষ্টা করবো। আর আপনাদের যদি নতুন কিছু জানার থাকে তাহলে আমাদেরকে কমেন্টের মাধ্যমে জানান আমরা আপনাদের সেই বিষয়ে জানানোর চেষ্টা করবো। ধন্যবাদ Amarload.com এর সাথে থাকার জন্য।