বয়স্ক ভাতার জন্য আবেদন - boyosko vata online application

বয়স্ক ভাতার জন্য আবেদন - boyosko vata online application পাশাপাশি ভাতার জন্য কিভাবে অনলাইনে আবেদন করবেন তার নিয়ম জেনে নিন।
বয়স্ক ভাতার জন্য আবেদন - boyosko vata online application

বন্ধুরা সবাই কেমন আছেন? আশা করি খুব ভালো আছেন। আর আমিও খুব ভালো আছি। আজকে আমরা জানেবো, বয়স্ক ভাতার জন্য আবেদন (boyosko vata online application) পাশাপাশি ভাতার জন্য কিভাবে অনলাইনে আবেদন করবেন তার নিয়ম এবং বয়স্ক ভাতা পাওয়ার যোগ্যতা ইত্যাদি নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করবো। তাহলে চলুন বন্ধুরা শুরু করা যাক আজকের টপিক।

বন্ধুরা আপনি যদি বয়স্ক ভাতা সম্পের্কে জানতে চান তাহলে সঠিক জায়গাই চলে এসেছেন। বয়স্ক ভাতা সাধারণত দুস্থ ও স্বল্প উপার্জনক্ষম অথবা উপার্জনে অক্ষম বয়স্ক জনগোষ্ঠীর সামাজিক নিরাপত্তা বিধানে ও পরিবার ও সমাজে মর্যাদা বৃদ্ধির লক্ষ্যে ১৯৯৭-৯৮ অর্থ বছরে প্রবর্তন করা হয়। আর এই কর্মসূচি বাস্তবায়ন করে থাকে সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের অধীনে সমাজসেবা অধিদফতর

বয়স্ক ভাতার অনলাইন আবেদন

ভাতা প্রদানের লক্ষ্যে সমাজসেবা অধিদপ্তর কর্তৃক দেশের সকল উপযুক্ত বয়স্ক নাগরিকদের নিকট হতে অনলাইনে দরখাস্ত করার জন্য আহবান করা হচ্ছে। অনলাইনে আবেদন করার জন্য প্রয়োজনীয় তথ্য দিতে হবে যেমন;- এনআইডি (NID) কার্ড, ছবি, সিগনেচার ও প্রয়োজনীয় সকল তথ্য নিয়ে আসতে হবে। কারণ সঠিকভাবে আবেদন করতে না পাড়লে ভাতা প্রার্থিতা অনেক সময় বাতিল হবার সম্ভাবনা থাকে।

বর্তমান যুগে দেশের প্রতিটি কার্যক্রম অনলাইন হওয়ার অনেক সুবিধা পাওয়া যাচ্ছে। কারণ এই ভাতার জন্য আগে জনগনকে অনেক ভোগান্তিতে পড়তে হতো। কিন্তু এখন আমরা তথ্য প্রযুক্তির যুগে এসে এই সকল কাজগুলো অনেক সহজ হয়ে গেছে।

সুতরাং, অনলাইনে বয়স্ক ভাতার আবেদন করার জন্য আপনার সকল তথ্য সঠিক থাকে তাহলে নিচের দেওয়া সমাজসেবা অধিদপ্তরের অফিসিয়াল লিঙ্কের মাধ্যমে আপনি অনলাইনে আবেদন করতে পাড়বেন। 

বয়স্ক ভাতার আবেদন করতে ক্লিক করুন

বয়স্ক ও বিধবা ভাতার টাকার পরিমাণ কত?

২০২১-২০২২ অর্থবছরে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার “সমাজসেবা অধিদপ্তরের” মাধ্যমে বাংলাদেশের বয়স্ক ও বিধবা ভাতার টাকার পরিমান জনপ্রতি মাসিক ৫০০ টাকা। সহজ করে বলতে গেলে, বয়স্ক ও বিধবা ভাতার টাকার পরিমাণ মাসিক ৫০০ টাকা।

ভাতা প্রাপকের যোগ্যতা ও শর্তাবলী:

১। সংশ্লিষ্ট এলাকার স্থায়ী বাসিন্দা হতে হবে।
২। জন্ম নিবন্ধন/জাতীয় পরিচিতি নম্বর থাকতে হবে।
৩। বয়ঃবৃদ্ধা অসহায় ও দুঃস্থ বিধবা বা স্বামী নিগৃহীতা মহিলাকে অগ্রাধিকার প্রদান করা হবে।
৪। যিনি দুঃস্থ, অসহায়, প্রায় ভূমিহীন, বিধবা বা স্বামী নিগৃহীতা এবং যার ১৬ বছর বয়সের নীচে ২টি সন্তন রয়েছে, তিনি ভাতা পাওয়ার ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার পাবেন।
৫। দুঃস্থ, দরিদ্র, বিধবা ও স্বামী নিগৃহীতাদের মধ্যে যারা প্রতিবন্ধী ও অসুস্থ তারা ভাতা পাওয়ার ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার পাবেন।
৬। প্রার্থীর বার্ষিক গড় আয়ঃ অনূর্ধ ১২,০০০ (বার হাজার) টাকা হতে হবে।
৭। বাছাই কমিটি কর্তৃক নির্বাচিত হতে হবে।

প্রার্থী নির্বাচনের মানদন্ড

  • নাগরিকত্ব: প্রার্থীকে অবশ্যই বাংলাদেশের স্থায়ী নাগরিক হতে হবে।
  • বয়স: বয়স অবস্যই ১৮ (আঠার) বছরের ঊর্ধ্বে হতে হবে। তবে সর্বোচ্চ বয়স্ক মহিলাকে অগ্রাধিকার প্রদান করতে হবে।
  • স্বাস্থ্যগত অবস্থা: যিনি শারীরিকভাবে অক্ষম অর্থাৎ সম্পূর্ণরূপে কর্মক্ষমতাহীন তাকে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দিতে হবে।
আর্থ-সামাজিক অবস্থা :
  • আর্থিক অবস্থার ক্ষেত্রে: নিঃস্ব, উদ্বাস্ত্ত ও ভূমিহীনকে ক্রমানুসারে অগ্রাধিকার দিতে হবে।
  • সামাজিক অবস্থার ক্ষেত্রে: নিঃসমত্মান, পরিবার থেকে বিচ্ছিন্ন ব্যক্তিদেরকে ক্রমানুসারে অগ্রাধিকার দিতে হবে।
ভূমির মালিকানা:

        ভূমিহীন প্রার্থীকে অগ্রাধিকার দিতে হবে। এ ক্ষেত্রে বসতবাড়ী ব্যতিত কোন ব্যক্তির জমির পরিমাণ
        ০.৫ একর বা তার কম হলে তিনি ভূমিহীন বলে গণ্য হবেন।

ভাতা প্রাপ্তির অযোগ্যতা

  1. সরকারি কর্মচারী পেনশনভোগী হলে।
  2. দুঃস্থ মহিলা হিসেবে ভিজিডি কার্ডধারী হলে।
  3. অন্য কোনোভাবে নিয়মিত সরকারী অনুদান/ভাতা প্রাপ্ত হলে।
  4. কোনো বেসরকারি সংস্থা/সমাজকল্যাণমূলক প্রতিষ্ঠান হতে নিয়মিতভাবে আর্থিক অনুদান/ভাতা প্রাপ্ত হলে।

বয়স্ক ভাতার আবেদন কিভাবে করবেন

বিশেষ করে দেখা যায়, যারা গ্রামে বসবাস করে তাদের বয়স্ক ভাতার আবেদন সম্পর্কে ধারণা অনেক কম থাকে। তারা ভাবতে থাকে কিভাবে boyosko vata online application করবেন। এক্ষেত্রে তারা চাইলে তাদের পাশেপাশের কারোর সহযোগীতা নিয়ে আবেদন করতে পারে। 

মনে রাখবেন, অনলাইনে আবেদন করার সময় সতর্কতার সাথে প্রত্যেকটি ধাপ পূরণ করতে হবে। কোনো ভুল হলে আবেদন বাতিল হওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

বয়স্ক ভাতার আবেদনের ধাপ সমূহ:
  • আবেদন ফরম পূরণের সময় লাল স্টার চিহ্নিগুলো অবশ্যই পূরণ করতে হবে। আর যেগুলোয় লাল স্টার থাকবে না সেগেুলো পূরণ না করলেই সমস্যা নেই তবে পূরণ করে দিবেন।
  • অনেক সময় দেখা যায় আবেদন করার সময় অর্থ পরিশোধের একটা বিষয় থাকে। যদি এগুলো থাকে তাহলে মোবাইল ব্যাংকিং এর মাধ্যমে তা পরিশোধ করতে হবে।
  • আবেদন ফরমের ছবি নির্দিষ্ট স্থানে আপলোড করতে হবে। 
  • আবেদনটি যে অফিসে পাঠাতে চান সেটি নির্বাচন করুন।
  • তারপর আপনার সামনে প্রাপ্তিস্বীকার মূলক SMS আসবে।
  • এসএমএস (SMS) টি সংরক্ষণ করে রাখবেন।

সর্বশেষ কথা

বন্ধুরা তাহলে আমরা কিভাবে বয়স্ক ভাতার জন্য আবেদন - boyosko vata online application করবো এগুলো সম্পের্কে বিস্তারিত জানলাম। 

বন্ধুরা কোথাও যদি বুঝতে না পাড়েন তাহলে কমেন্ট করুন। আশা করি, উত্তর দেওয়ার চেষ্টা করবো। বন্ধুরা এই আর্টিকেলটি যদি আপনাদের ভালো লাগে তাহলে শেয়ার করতে ভুলবেন না। ধন্যবাদ ‍Amarload.com এর সাথে থাকার জন্য।

আরও পড়ুন: